স্মার্টফোনের জন্য মায়োপিয়া বেড়ে যাচ্ছে

Myopia,high myopia,myopic eye
Myopia is increasing for smartphones
সারাক্ষণ হাতের মোবাইলে বসে কত কিছু করছেন ব্যবহারকারীরা। প্রায় সব বয়সের মানুষের মধ্যেই দেখা যায় এ স্মার্টফোনটি এই ফোন নিয়ে বিভিন্ন রকম নেশা ধরা, গেমস, ইন্টারনেট, ফেসবুক,ম্যাপ, ডিকশনারি।এত কিছুর থাকার কারণেই তো বলা হয়েছে স্মার্টফোন। স্মার্টফোনের প্রতি ঝুঁকে পড়ছে প্রজন্ম। কিন্তু স্মার্টফোন ডেকে এনেছে ভয়ঙ্কর বিপদ। স্মার্টফোনের অতিরিক্ত ব্যবহার কমিয়ে দিচ্ছে দৃষ্টি ক্ষমতা।ডেভিড অ্যালামবিম নামের ব্রিটিশ চক্ষু বিজ্ঞানী গবেষণার মাধ্যমে দাবি করেছেন 1997 তে স্মার্টফোন বাজারে আসার পর মায়োপিয়া কাছের জিনিস দেখার অক্ষমতা অল্পবয়সীদের মধ্যে অত্যন্ত 35% বৃদ্ধি পেয়েছে শুধু তাই নয় আগামী দশ বছরের মধ্যে স্মার্টফোন ব্যবহারকারী 50% তরুণী মায়োপিয়ার সমস্যায় ভুগবেন।
ব্রিটেনের জনসংখ্যার অর্ধেকই বর্তমানে স্মার্টফোনের মালিক। এমনকি 18 এর কম বয়সীদের মধ্যে ব্যাপকভাবে বাড়ছে স্মার্টফোনের ব্যবহার। স্মার্টফোনের মালিকরা দিনে কমপক্ষে দুই ঘন্টা স্মার্ট ফোন ব্যবহার পেছনে সময় ব্যয় করেন। এর সঙ্গে চলে ল্যাপটপ, টেলিভিশন, ট্যাবলেট, কম্পিউটারের পেছনে সময় ব্যয়। এসব চোখের ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলে। এমনকি এর ফলে চিরতরে অন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

নতুন গবেষণায় উঠে এসেছে স্মার্টফোন মালিকরা সাধারণভাবে চোখের থেকে 30 সেন্টিমিটার দূরে থেকে ফোন ব্যবহার করে। অনেক ব্যবহারের সময় চোখের থেকে মাত্র 18 সেন্টিমিটার দূরে রাখেন স্মার্টফোনকে। গবেষণায় উঠে এসেছে এ স্মার্টফোনের স্ক্রিন চোখের খুব সামনে রেখে দেওয়ার ফলে মায়োপিয়ার জন্য দায়ী জিন কার্যকারী হয়ে যাচ্ছে।এপিজেনেটিক এই সমস্যার ফলে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে কাছের জিনিস স্পষ্ট হবে দেখার অক্ষমতা। 21 থেকে 30 বছর বয়সীদের ভয়াবহভাবে বাড়ছে মায়োপিয়া। অ্যালমবিম আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এই রকম চলতে থাকলে 2033 এর মধ্যে 30 বছর বয়সে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের 40% থেকে 50%  মায়োপিয়ার সমস্যায় ভুগছেন।

Post a Comment

0 Comments